অন্যান্য প্রতিবাদী শ্রেণীটির নাম 'ছাত্র'

প্রতিবাদী শ্রেণীটির নাম ‘ছাত্র’

-

নিউজবাংলা  ডেস্ক
ভাই শার্টটার দাম কত?
নেন ভাই। অনেক ভালো কাপড়।
দাম কেমন পড়বে?
একদম আনকমন মাল। কোথাও খুঁজে পাবেন না।
দামটা বলেন আগে।
এই নেন বোতাম ছাড়িয়ে দিলাম। গায়ে দিয়ে দেখেন।
দাম বলেন। তারপর পড়বো।
পড়েন। দেখেন, একদম ফিটিংস হবে। সবই ঠিক আছে। দামটা বলেন না? ভাই, দামাদামি করবো না। একটা দাম বলে দেবো যদি ভালো লাগে নিবেন না হয় রেখে যাবেন।
জী বলুন।
শুধু শার্টই নিবেন না আরও কিছু? এই ভাইরে প্যান্ট দেখা তো।
না ভাই, আপনি শুধু এই শার্টটার দামই বলেন।
শার্ট কী একটাই? না আরেকটা দিবো?
না, এটার দাম বলেন।
একদাম পড়বে ১৮০০ টাকা। বলেন কী? এই শার্ট ১৮০০?
কেন ভাই? অসম্ভব কি হলো? বেশী বলছি?
না ভাই লাগবে না। আরে ভাই শুনেন।
কত দিবেন? না ভাই, আমার এতোটাকা বাজেট নাই।
ওই মিয়া ফাজলামো করেন? বাজেট নাই তো মার্কেটে আইছেন কিল্লেগা। আমরা কী মস্করার দোকান খুইলা বইছি?
ঠিক আছে থাকেন।
থাকেন কী? শার্টের দাম বলেন।
এতো টাকার শার্ট কেনা সম্ভব না।
সম্ভব না, তাহলে এতো সময় নষ্ট করলেন কেন?
আমি তো প্রথমেই বলেছি দাম কত? আপনিই তো প্যাচাইলেন।
আমার তো কাস্টমারের অভাব। আপনার লগে প্যাচাপেচি করুম।
স্যরি ভাই। আমার লাগবে না। আমি যাচ্ছি।
কিয়ের যাচ্ছি? দাম বলতে অইবো।
আসলে আমি একটু কমের মধ্যে নিতে চাচ্ছি।
কত কম? বলেন শুনি।
এই মনে করেন ৩০০-৩৫০ এর মধ্যে।
এই দামে কিনতে হলে রাস্তায় ভ্যান আছে না? ওই ভ্যান থেকে নিবেন। মার্কেটে ঢুকবেন না। ঠিকাছে। ওই মিয়া কই যান? এদিকে আয়েন। একটু বাড়ায়েবুড়ায়ে বলেন। শার্টটা নিয়ে যান।
বললাম তো আমার বাজেট কম।
আচ্ছা, ১৫০০ না একদম ১০০০ দেন। ওই প্যাকেট করে দে।
না ভাই, পারবো না।
পারবেন কত? হেইডা বলেন।
৩৫০ হলে দিবো ।
এই শার্ট ৫০০ টাকায় কোনোদিন কিনতে দেখছেন?
দেখি নাই। রেখে দেন।
খাড়ান মিয়া। ৭০০ হলে পারবেন?
বললাম তো বাজেট নেই।
নেন লাভ করনের দরকার নাই ৫০০ টাকাই দিলাম। ৫০০ টাকার একটা শার্ট পইড়া দেখেন।
না ভাই, আমি যে দাম বললাম ওইটা হলে পারবো।
ওই মিয়া যান কেন? এদিক আয়েন। সেই এক দাম বইলা দাঁড়ায়ে আছেন। আরেকটু আগান।
আমি হাইয়েস্ট ৪০০ দিতে পারবো। এর বেশী না। ভালো থাকেন।
রাগ কইরেন না। এদিক আয়েন।
দেন ৪০০ টাকাই দ্যান। ওই বাইরে প্যাকেট কইরা দে।
এভাবেই দিনের পর দিন কাস্টমারদের জিম্মি করে ব্যবসা করছে নিউমার্কেটের ব্যবসায়ীরা। সাধারণ মানুষ লজ্জা ভয়ে প্রতিবাদ করে না। যারা অন্যায় অনিয়ম মানতে পারে না তারা প্রতিবাদী হয়ে ওঠে। আর এই প্রতিবাদী শ্রেণীটির নাম ‘ছাত্র’। নিউমার্কেটে ব্যাবসায়ী-ঢাকা কলেজের ছাত্রদের সাথে সংঘর্ষে ন্যায়ের পক্ষে থাকুন।
সূত্র: ফেসবুক থেকে সংগৃহীত

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

সর্বশেষ সংবাদ

ইউক্রেনের পূর্বাঞ্চলে রাশিয়ার সর্বাত্মক হামলা শুরু

ছবি: সংগৃহীত ইউক্রেনীয় সেনাদের কোণঠাসা করতে দেশটির পূর্বাঞ্চলে সর্বাত্মক হামলা শুরু করেছে রাশিয়া। মঙ্গলবার (২৪ মে) শুরু হওয়া এই লড়াইয়েই...

নারীর জন্য বাসযোগ্য হোক দেশ

নিউজবাংলা ডেস্ক জাহানারা হক লিলি। ধামরাইয়ের ভালুম আতাউর রহমান খান ডিগ্রি কলেজের বাংলা বিভাগের সহকারী অধ্যাপক, বিভাগীয় প্রধান। শিল্প ও...

রবীন্দ্র-ভাবনায় সমাজ অনুধ্যান

 ড. মিল্টন বিশ্বাস  রবীন্দ্রনাথ আমাদের নিত্যসঙ্গী, বাঙালির আত্মপরিচয়ের অন্যতম স্তম্ভ। তাঁকে কেন্দ্র করে কেবল পাকিস্তানি সরকারের বিতর্কিত ভূমিকা নয় ১৯৭১...

ডনবাস দখলের জন্য পুতিনের বাহিনী কী কৌশল নিয়েছে?

নিউজ বাংলা ডেস্কঃ  ইউক্রেনের রাজধানী কিয়েভের আশপাশ থেকে রাশিয়া তার সৈন্যদের সরিয়ে নেয়ার পর থেকেই রাশিয়া ইউক্রেনের পূর্বাঞ্চলকেই তার অভিযানের...

দেশের সংস্কৃতি ও জাগরণ জানতে বই পড়তে হবে: জয়শ্রী দাস

বিশিষ্ট কথা সাহিত্যিক ও বিএসটিআইএর উপপরিচালক জয়শ্রী দাস বলেছেন, একজন নাগরিক হিসেবে আমাদেরকে অবশ্যই দেশের সংস্কৃতি, দেশের জাগরণ ওইতিহাস...

গাঙচিল সাংবাদিক ফোরামের নতুন কমিটি

নিজস্ব প্রতিবেদক : দেশে পর্যটন বিষয়ক পেশাদার সাংবাদিকদের সংগঠন ‌‘গাঙচিল সাংবাদিক ফোরামের’ নতুন সভাপতি নির্বাচিত হয়েছেন দৈনিক বাংলাদেশের আলোর কূটনৈতিক প্রতিবেদক...

Must read

ইউক্রেনের পূর্বাঞ্চলে রাশিয়ার সর্বাত্মক হামলা শুরু

ছবি: সংগৃহীত ইউক্রেনীয় সেনাদের কোণঠাসা করতে দেশটির পূর্বাঞ্চলে সর্বাত্মক হামলা...

নারীর জন্য বাসযোগ্য হোক দেশ

নিউজবাংলা ডেস্ক জাহানারা হক লিলি। ধামরাইয়ের ভালুম আতাউর রহমান খান...

আপনার পছন্দের সংবাদRELATED
Recommended to you